Logo
সোমবার, ২৭ জানুয়ারি, ২০২০ | ১৪ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

প্রেমিক আপনাকে আত্মহত্যার দিকে ঠেলে দিচ্ছে না তো?

প্রকাশের সময়: ১২:০৮ অপরাহ্ণ - শনিবার | জানুয়ারি ৪, ২০২০

তৃতীয় মাত্রা

আমাদের দেশে ছেলে মেয়ের সম্পর্ক ভেঙে যাবার পর সবচাইতে কমন হলো প্রাক্তন প্রেমিকের ব্ল্যাকমেইলের শিকার হওয়া। একটা সময়ে আপনি আপনার সর্বস্ব দিয়ে যে বদমায়েশকে বিশ্বাস করেছিলেন, সেই সময়ের স্মৃতিচিহ্নগুলো ব্যবহার করে জানোয়ারটা আপনার জীবন তচনচ করে দিতে চাইবে। ব্ল্যাকমেইল এমন মাত্রায় পৌঁছে যেতে পারে যার ফলে আপনার মনে হতে পারে, প্রাক্তন প্রেমিক আপনাকে আত্মহত্যার দিকে ঠেলে দিচ্ছে।

ধরুন আপনি বর্তমানে অন্য একটা সম্পর্কে জড়িয়েছেন বা জড়ানোর কথাবার্তা চলছে। এই সময়ে আপনার অতীতকে ব্যবহার করে বদমায়েশটা চাইছে আপনাকে ব্যবহার করতে। এই ব্যবহারের ধরণ টাকা পয়সা, শারীরিক ও মানুষিক অত্যাচার, শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন থেকে শুরু করে “সুইসাইড কর নাহলে ফাঁস করে দেব” এরকম হুমকিও আছে এবং আমি নিজেই এমন কেইস জানি যেখানে বিবাহিতা মেয়ে বাধ্য হয়েছে নতি শিকার করতে, আত্মহত্যাও করেছে কেউ কেউ।

ব্যক্তিগতভাবে আমি সবচেয়ে ঘৃণা করি স্বাধীনতা বিরোধীদের। এদের পরে অপরাধীদের ভেতরে যাদেরকে আমার সবচাইতে নীচু শ্রেনীর বলে মনে হয় এরা হচ্ছে এই ব্ল্যাকমেইলার এর দল। Castration নামের মধ্যযুগীয় শাস্তিটা এদের জন্যে চালু থাকলে খুব খুশি হতাম। আফসোস, এটা আধুনিক যুগ!

প্রাক্তন প্রেমিকের ব্ল্যাকমেইলের শিকার হলে কি কি মাথায় রাখবেন?

১. আমাদের প্রায় সবারই অতীত আছে। আমরা প্রায় সবাই এমন অনেক কিছু করেছি যেগুলো না করলে হয়ত ভাল হত। কিন্তু করে যখন ফেলেছি, এটা তো মোছা সম্ভব না। যদি সেই কাজটি পেছনে ফেলে আসা হয়ে থাকে, এটা নিয়ে কোনভাবেই নতুন করে নিজেকে দোষী ভাবা যাবেনা। এটা সবার আগে খেয়াল রাখতে হবে। Every saint has a past and every sinner has a future.

২. ‪ব্ল্যাকমেইলারের কাছে কোনভাবেই নতি স্বীকার করা যাবে না। ঠান্ডা মাথায় বলি এর পেছনের কারণ। যে মুহূর্তে আপনি নতি স্বীকার করলেন, ঠিক সে মুহূর্তে আপনি শুওরটার কাছে দুগ্ধবতী গাভীতে পরিণত হবেন। প্রথমে অল্প ডিমান্ড দিয়ে শুরু করবে, তারপর বাড়তে বাড়তে এ ডিমান্ড এমন এক পর্যায়ে যাবে যাতে আপনি বাধ্য হন তাকে “না” বলতে। এক পর্যায়ে আপনি “না” বললে সে আপনার গায়ে হাত তুলতে দ্বিধা করবে না, কারণ আপনি তার হাতের পুতুল। তাই “না” টা শুরুতেই বলুন। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই আপনার দৃঢ়তা তাকে নিরুৎসাহিত করবে।

উপরে যা বললাম তা শত খানেক কেস স্টাডি দেখে চেনা প্যাটার্ন হিসেবে বের করা।

৩. ধরে নিলাম ওই বদমায়েশ আপনার অতীতের কোন ছবি/ mms ফাঁস করে দিল। কি কি ভয় আপনার? লোকলজ্জা, সামাজিক অসম্মান, ব্যাড রেপুটেশন, এই তো? আত্মহত্যার কথা ভাবছেন? বোকার মত এসব চিন্তাও করবেন না।

লোকলজ্জা, সামাজিক অসম্মান, ব্যাড রেপুটেশন এর কোনটাই আপনার উপর প্রভাব ফেলবে না যদি আপনি পাত্তা না দেন। আমাদের সমাজে ঘুষখোর, খুনী, ধর্ষক যদি আইনের ফাঁক গলে দিব্যি বুক ফুলিয়ে চলতে পারে, কেন আপনি অতীতের একটা ব্যক্তিগত ব্যাপার নিয়ে লজ্জায় কুঁকড়ে থাকবেন? Who are these people to judge you?

পেশাগত অভিজ্ঞতা থেকে বলতে পারি, ঢাকা আর ব্যাঙ্কক এর ভেতরে শুধু বাইরের আবরণটুকু ছাড়া পার্থক্য সামান্যই। প্রভার leaked mms নিয়ে যারা তাকে কটুকথা বলে, এরা প্রায় সবাই ওটা দেখে ফ্যান্টাসির মজা লুটেছে। You owe nothing to these hypocrites.

৪. আপনার বাবা মা হয়ত কষ্ট পাবেন, তবে সাময়িক ধাক্কা কেটে গেলে তাঁরা আপনার পাশেই থাকবেন। ভাইবোনের ক্ষেতেও এটা প্রযোজ্য । এনারা ছাড়া বাকি আর কারো মতামতের নেট ভ্যালু হচ্ছে শূন্য। মনে রাখবেন, Those who mind do not matter, those who matter do not mind

৫. আপনি বিবাহিত/ কমিটেড হয়ে থাকলে নিজেই এ ব্যাপারে পার্টনারকে জানান। তিনি যদি বিবেকবান হয়ে থাকেন, আপনার কষ্টটা বুঝবেন। As long as you are loyal to him, your past should not be an issue. দুই হাজার উনিশ সালে এসে ভিক্টোরিয়ান পিউরিটান মনোভাব ধারণ করাটা কোন কাজের কথা না। আজ যদি আপনি আপনার পার্টনারকে সব খুলে না বলেন তবে কাল দেখবেন আপনার প্রাক্তন প্রেমিক আপনাকে ব্যবহার করছে তার স্বার্থ চরিতার্থ করতে। দুদিন পরে দেখবেন সে আপনাকে মারধর করছে যা শেষ পর্যন্ত আপনাকে আত্মহত্যার দিকে ঠেলে দেবে। তাই সময় থাকতে পার্টনারকে সব জানান, দেখবেন সেই আপনার শক্তি হচ্ছে।

আমার কথা

কেউ কেউ জানিয়েছেন, আমার এই তুচ্ছ সিরিজটা পড়ে নাকি তাঁরা সামান্য হলেও সাহস পেয়েছেন। তাঁদের উদ্দেশ্যে বলছি, আপনাদের এই অধম লেখকের জীবনটাও কুসুমাস্তীর্ণ নয়। I have my fair share of youthful offences, I have had my time, and I have been through horrible abuse too.

আপনার জীবনের নিয়ম কানুন ঠিক করে দেবার প্রথম দাবীদার আপনি নিজে, সমাজ নয়। যতক্ষণ পর্যন্ত কারো ক্ষতি না করছেন, ততক্ষণ পর্যন্ত আপনার ইচ্ছাই বিশ্বের সবচেয়ে বড় আইন- নাগরিক ব্লগের এই ওস্তাদি বয়ানটি আমার খুব প্রিয়।

আমার পেশা যাই হোক, I have my past and I am not ashamed of it. অতীতের শুদ্ধ এবং ভুল যা কিছুই করি না কেন, সব মিলিয়েই আজকের আমি।

Today is the first day for the rest of your life.

ব্ল্যাকমেইলারের হুমকি পাত্তা না দিয়ে লড়াই শুরু করুন আজ থেকেই।

The world is yours!!!

Read previous post:
উদ্ধারকারীদের দেখলেই জড়িয়ে ধরে রানি অ্যাবি

সংগৃহীত ছবি তৃতীয় মাত্রা ডেস্ক রিপোর্ট : প্রাণী হিসেবে ক্যাঙ্গারু খুব ভদ্র ও মায়াবী। আবেগ প্রকাশের ক্ষেত্রে তারা মাঝে মাঝে...

Close

উপরে