Logo
বুধবার, ১৬ অক্টোবর, ২০১৯ | ১লা কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ইংলিশদের ‘স্যরি’ বলবেন না মাশরাফি

প্রকাশের সময়: ৪:২৬ অপরাহ্ণ - মঙ্গলবার | অক্টোবর ১১, ২০১৬

31চট্টগ্রামে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে আগামীকাল বুধবার মুখোমুখি হচ্ছে বাংলাদেশ ও ইংল্যান্ড। এ ম্যাচের আগে ঘুরে ফিরে আসছে আগের ম্যাচে ঘটনা। বাটলারের আউটের পর টাইগারদের করা উদযাপন পছন্দ হয়নি ইংলিশদের। আর তাই জরিমানার কবলে পড়তে হয় বাংলাদেশের দুই খেলোয়াড়কে। তবে সে ঘটনার জন্য মোটেও দুঃখিত নন বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। নিজেদের মতো উদযাপন করাতে কোনো অপরাধ দেখছেন না তিনি। তাই ‘স্যরি’ বলতে নারাজ অধিনায়ক। তবে আইসিসির দেওয়া শাস্তি মেনে নিয়েছেন দেশ সেরা এ পেসার।

মঙ্গলবার চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে অনুশীলন করে বাংলাদেশ। অনুশীলনের আগে মাশরাফি বলেন, ‘সত্যি বলতে আমরা কোনো ভুল করিনি। স্যরি বলার কিছু নেই। আমরা স্রেফ উদযাপন করেছি। আমাদের দুঃখ প্রকাশ করার কিছু নেই। যা হয়েছে, ম্যাচ রেফারি দেখেছেন। আমি এখনো মনে করি, ছেলেরা স্রেফ উদযাপন করছিল।’

আগের ম্যাচে প্রথমে ব্যাটিং করতে নেমে লক্ষ্যটা খুব বড় দিতে পারেনি বাংলাদেশ। ২৩৯ রানের সাদামাটা লক্ষ্যের শুরুতেই তুলে নেন চার উইকেট। তবে এক প্রান্তে ক্রমেই হুমকি হয়ে উঠছিলেন ইংলিশ অধিনায়ক জস বাটলার। ২৮তম ওভারের প্রথম বলে খেলতে গিয়ে মিস করেন বাটলার। বল পায়ে লাগলে বেশ জোরালো আবেদন করেন তাসকিন। কিন্তু আম্পায়ার তাতে সাড়া না দিলে বেশ উত্তেজিত হয়ে পড়েন তিনি। এরপর অধিনায়কের সঙ্গে আলোচনা করে রিভিউর সিদ্ধান্ত নেন তারা। রিভিউতে বাংলাদেশের পক্ষে সিদ্ধান্ত আসলে উদযাপন করেন বাংলাদেশ দলের খেলোয়াড়রা। আর বাংলাদেশের এমন উদযাপন পছন্দ হয়নি বাটলারের। তিনি জড়িয়ে পড়েন বিতর্কে।

উদযাপনের মাত্রা একটু বেশি হয়ে গেছে কিনা জানতে চাইলে মাশরাফি বলেন, ‘ব্যাপারটা এভাবে দেখি যে উইকেট পাওয়ার পর আমরা স্রেফ সেলিব্রেট করছিলাম। এটাকে স্বাভাবিকভাবেই নেওয়া উচিত। সব দলই উইকেট পেলে উদযাপন করে। তবে ম্যাচ রেফারি হয়তো ভেবেছে উদযাপনটা কোড অব কন্ডাক্টের বাইরে হয়ে গেছে। কিন্তু আমরা সেটা বোঝাতে চাইনি। তবে যেটা হয়েছে, হয়ে গেছে। আমরা কালকের ম্যাচে মন দিচ্ছি।’

মাশরাফিদের সে উদযাপন নিয়ে সামাজিক মাধ্যমসহ গণমাধ্যমেও চলছে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা। তবে এ নিয়ে মোটেও চিন্তিত নন মাশরাফি। এমনকি এটা সামান্য স্পর্শও করেনি তাকে। ক্যারিয়ারের নানা ধরনের সমালোচনা শুনে অভ্যস্ত হওয়ায় বিষয়টি নিয়েছেন স্বাভাবিকভাবেই। তবে সেদিন কোন ভুল হয়ে থাকলে উত্তেজনার বসেই হয়েছে বলে আবারো উল্লেখ করেন তিনি।

‘আলোচনা-সমালোচনা আমাকে স্পর্শ করেনি একবারের জন্যও। আমি জানিও না, কী হয়েছে! আমার আর সাব্বিরের ২০ শতাংশ জরিমানা হয়েছে। তবে এসব দিকে একদমই নজর ছিল না, চিন্তাও করিনি। বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা অনেক সময়ই অনেক কিছু শুনেছে। অন্যায় কিছু দেখি না। হয়তো বা হিট অব দ্য মোমেন্ট অনেক কিছু হতে পারে। সেটা নিয়ে বাড়াবাড়ির মানে দেখি না। সবাইকে স্বাভাবিকভাবে নিতে হবে। ম্যাচ রেফারি সেখানে ছিল। ভুল যা পেয়েছে, সে অনুযায়ী জরিমানা করেছে। সবকিছুর ওপরে এটা ভদ্রলোকের খেলা। আমরা চেষ্টা করব মাঠের খেলা ঠিকমতো খেলতে।’

Read previous post:
ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সমালোচনায় ইনজামাম

উড়িতে সন্ত্রাসী হামলার পর বিসিসিআই সভাপতি অনুরাগ ঠাকুর জানিয়েছিলেন পাকিস্তানের সঙ্গে আর কোনো ক্রিকেট নয়। এবার বোর্ড অব কনট্রোল ফর...

Close

উপরে