Logo
বৃহস্পতিবার, ২৪ মে, ২০১৮ | ১০ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

খুলনা ও বরিশালে পাইপলাইনে গ্যাস আসবে: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশের সময়: ৫:১১ অপরাহ্ণ - শনিবার | মার্চ ৩, ২০১৮

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ভোলা থেকে পাইপলাইনে বরিশাল এবং খুলনায় গ্যাসের ব্যবস্থা করা হবে। অচিরেই এ প্রক্রিয়া শুরু হবে।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশকে ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশ এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত-সমৃদ্ধ দেশে পরিণত করতে আমরা বদ্ধপরিকর। তিনি বলেন, ১৬০০ মেগাওয়াট থেকে এখন ১৬ হাজার ৩৫০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করছি। ২০২১ সালের মধ্যে ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছানো হবে।

শনিবার দুপুরে খুলনা সার্কিট হাউজ ময়দানে স্থানীয় আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির ভাষণে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। তিনি উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আবারও সবাইকে নৌকা মার্কায় ভোট দেওয়ার আহ্বান জানান।

প্রতিটি উপজেলায় ফায়ার স্টেশন নির্মাণ, বন্ধ কলকারখানা চালু, বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ, রাস্তা-ঘাট, পুল-ব্রিজ নির্মাণ, মোংলা বন্দর পর্যন্ত রেললাইন প্রকল্প বাস্তবায়নসহ বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ৬৮ লাখ মা-বোন ভাতা পাচ্ছে। স্কুল শিক্ষার্থীদের বই কিনতে হয় না, বই কেনার দায়িত্ব আমি নিয়েছি। বিনা পয়সায় জানুয়ারির ১ তারিখে শিক্ষার্থীদের হাতে বই তুলে দেওয়া হয়।

কমিউনিটি ক্লিনিক চালু, খুলনায় বিশেষায়িত হাসপাতাল চালু, পল্লী সহায়ক ব্যাংক, একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশের একটি মানুষও গৃহহারা থাকবে না, সবাইকে ঘরবাড়ি তৈরি করে দেওয়া হবে। যুবসমাজের জন্য ভোকেশনাল ট্রেনিংয়ের ব্যবস্থা, বিদেশে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা ও প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংকের ঋণের মাধ্যমে বিদেশ যাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। সার-বীজ কৃষকদের ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে রয়েছে। ১ কোটি কৃষককে ১০ টাকায় ব্যাংক হিসাব খুলে দিয়েছি। শিশুকে স্কুলে পাঠালে মায়ের নামে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে উপ-বৃত্তির টাকা পাঠানো হচ্ছে। মোবাইল ফোন ও ইন্টারনেট সহজলভ্য করা হয়েছে।

বিএনপি সরকারের সমালোচনা করে তিনি বলেন, তারা ক্ষমতায় এসে মোংলা বন্দর বন্ধ করে দিয়েছিল, মিল কলকারখানা বন্ধ করে দিয়েছিল। আমরা এগুলো চালু করেছি। খুলনাঞ্চলে বিএনপির আমলে নিহত মঞ্জুরুল ইমামসহ বিভিন্ন নেতা-কর্মীর নাম উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমরা সন্ত্রাস এবং জঙ্গিবাদ কঠোর হস্তে দমন করেছি।

খুলনা জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হারুনুর রশীদের সভাপতিত্বে জনসভায় কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ ছাড়াও খুলনা, গোপালগঞ্জ, সাতক্ষীরা, যশোর, বাগেরহাটসহ বিভিন্ন জেলার নেতৃবৃন্দ ও সংসদ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে ২ হাজার ৪১ কোটি টাকার ৯৯ প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শনিবার দুপুর ২টা ৫২ মিনিটে সার্কিট হাউজ ময়দানের জনসভার পূর্বে মঞ্চের পাশে তৈরি করা একটি বোর্ডে সুইচ টিপে তিনি এর উদ্বোধন করেন। ৩টা ৩২ মিনিটে তিনি জনসভায় প্রধান অতিথির ভাষণ শুরু করেন। প্রকল্পগুলোর মধ্যে ৬৭৫ কোটি ৩৭ লাখ টাকার ৪৭টি প্রকল্পের উদ্বোধন এবং ১ হাজার ৩৩৬ কোটি ৪ লাখ টাকার ৫৩টি নতুন প্রকল্পের নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়। উদ্বোধন হওয়া ৪৭টি প্রকল্পের অধিকাংশ কাজ শতভাগ সম্পন্ন হয়েছে।

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
Read previous post:
টেকনাফ সদরের অবহেলিত প্রতিবন্ধীর খুশী

তৃতীয়মাত্রা : সাইফুদ্দীন মোহাম্মদ মামুন, টেকনাফঃ টেকনাফ সদরের অবহেলিত প্রতিবন্ধী আবুল হোসেন নতুন চাকা গাড়ী পেয়ে খুশী হয়ে সকলকে ধন্যবাদ...

Close

উপরে