Logo
শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ৬ই আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

একই দিনে দুর্ঘটনায় গ্রীন লাইনের ২ বাস

প্রকাশের সময়: ২:৩৫ অপরাহ্ণ - বৃহস্পতিবার | সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৯
সংগৃহীত ছবি

তৃতীয় মাত্রা

ডেস্ক রিপোর্ট : একই দিনে পৃথক দুই দুর্ঘটনার কবলে পড়েছে গ্রীন লাইনের ২ বাস। যার মধ্যে একটিতে ছিলেন তথ্য মন্ত্রণালয়ের ২৫ জন কর্মকর্তা।

ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা গ্রীন লাইন পরিবহনের একটি এসি বাস ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের দক্ষিণ সুরমা রশীদপুরে দুর্ঘটনা কবলে পড়েছে। বৃহস্পতিবার ভোরে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় দুই যাত্রী আহত হয়েছেন। তাদেরকে উদ্ধার করে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সূত্র জানায়, গ্রীন লাইন পরিবহনেরর এসি বাসটি বুধবার দিবাগত রাত ১২টা ৫ মিনিটে ঢাকা থেকে যাত্রীদের নিয়ে সিলেটের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে। বৃহস্পতিবার ভোর ৫টার দিকে সিলেটের রশীদপুরে পৌঁছামাাত্রই ওই বাসের চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ব্রিজের রেলিংয়ের ওপর তুলে দেন। এতে ব্রিজের রেলিং ভেঙে যায় এবং বাসটির সামনের নিচের অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। পরবর্তীতে বাসে থাকা অনেক যাত্রী বাসের গ্লাস ভেঙে বের হন। আর বাসের সামনে থাকা দুইজন যাত্রী গুরুতর আহত হন।

দুর্ঘটনা কবলিত ওই বাসের পেছনে থাকা আরেকটি বাসের যাত্রী ব্যাংক কর্মকর্তা আজিজুল ইসলাম জানান, তিনি রাত ১২টা ২০ মিনিটের সময় ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা একটি বাসের যাত্রী ছিলেন। রশীদপুরে এসে দেখতে পান গ্রীন লাইন পরিবহনের বাসটি দুর্ঘটনায় পতিত হয়েছে। এ সময় যাত্রীরা বাসের গ্লাস ভেঙে বের হন।

দক্ষিণ সুরমা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খায়রুল ফজল জানান, গ্রীন লাইন পরিবহনের একটি এসি বাস রশীদপুরে এসে দুর্ঘটনার কবলে পড়েছে। এতে বাসে থাকা দুই যাত্রী গুরুতর আহত হয়েছেন। বাসটি বর্তমানে পুলিশ হেফাজতে রয়েছে।

অন্যদিকে খুলনার রূপসা সেতুর টোলপ্লাজার ডিভাইডারের সঙ্গে ধাক্কা লেগে উল্টে গেছে সরকারি কর্মকর্তাবাহী গ্রীন লাইনের একটি বাস। এতে পাঁচজন আহত হয়েছেন। বাসটিতে তথ্য মন্ত্রণালয়ের ২৫ জন কর্মকর্তা ছিলেন। তারা প্রশিক্ষণের জন্য খুলনায় আসছিলেন। বৃহস্পতিবার ভোর ৫টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

যাত্রীদের অভিযোগ, বাসের চালক চোখে ঘুম নিয়েই গাড়ি চালাচ্ছিলেন। তবে রাতভর বৃষ্টিতে রাস্তা একটু পিচ্ছিল ছিল বলে জানান টোলপ্লাজায় কর্মরতরা।

সূত্র জানায়, গ্রীন লাইনের বাসটি বুধবার দিবাগত রাতে ঢাকা থেকে ২৫ জন কর্মকর্তাকে নিয়ে খুলনার উদ্দেশ্যে রওনা হয় । বৃহস্পতিবার ভোর ৫টার দিকে দ্রুতগতির বাসটি (ঢাকা মেট্রো ব-০৬৮০) খুলনার রূপসা সেতুর পশ্চিম দিকের একটি ডিভাইডারের সঙ্গে ধাক্কা লেগে উল্টে যায়।

দুর্ঘটনা কবলিত বাসে থাকা সহকারী তথ্য কর্মকর্তা ফেরদৌস বলেন, তথ্য মন্ত্রণালয়ের তিনটি অধিদফতরের ১০ম গ্রেডের কর্মকর্তাদের ৯ সপ্তাহ বুনিয়াদি প্রশিক্ষণের অংশ হিসেবে তিনদিনের সফরে খুলনায় আসছিলেন তারা। ভোরে রূপসা সেতু পার হয়ে বাসের চালক দ্রুত গতিতে চালাতে গিয়ে নিয়ন্ত্রণ হারায়। গাড়ি থামাতে না পেরে চালক রাস্তার মাঝে থাকা ডিভাইডারে উঠিয়ে দেয়। এতে বাসটি উল্টে যায়। বড় ধরনের কোনো ঘটনা না থাকলেও চার কর্মকর্তা কিছুটা আহত হয়েছেন। এছাড়া বাসের হেলপারও আহত হয়েছেন। আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। তবে ঘটনার পর থেকে চালক পলাতক রয়েছেন।

তিনি আরও জানান, গণযোগাযোগ অধিদফতরের ১৪ জন, জাতীয় গণমাধ্যম ইনস্টিটিউশনের ৯ জন ও তথ্য অধিদফতরের ২ জনকে নিয়ে বাসটি ঢাকা থেকে খুলনায় আসছিল।

রূপসা সেতুতে টোল আদায়কারী সিস্টেম প্রকৌশলী তৌফিক আহমেদ রনি বলেন, সেতুর টোল আদায়কারীরা আমাকে জানিয়েছেন গ্রীন লাইন পরিবহনের বাসটির চালক ঘুমন্ত অবস্থায় ছিলেন। যে কারণে রূপসা সেতু পার হয়ে দ্রুতগামী বাসটি একটি ডিভাইডারের সঙ্গে ধাক্কা লেগে উল্টে যায়। গাড়ির আঘাতে ডিভাইডার ৩০০ গজ দূরে সরে যায়। দুর্ঘটনা কবলিত বাসটি উদ্ধার করা হয়েছে।

Read previous post:
অবশেষে মারা গেলেন দুদক পরিচালকের দগ্ধ স্ত্রী

তৃতীয় মাত্রা ডেস্ক রিপোর্ট : রাজধানীর উত্তরায় নিজ বাসায় অগ্নিদগ্ধ হওয়া দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পরিচালক মোহাম্মদ ইউসুফের স্ত্রী তানিয়া...

Close

উপরে