Logo
বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারি, ২০২১ | ৭ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বিশ্বের সেরা বন্দরের তালিকায় ৬৪তম চট্টগ্রাম

প্রকাশের সময়: ৪:৫৫ অপরাহ্ণ - শুক্রবার | আগস্ট ২, ২০১৯

তৃতীয় মাত্রা

ডেস্ক রিপোর্ট : লন্ডনভিত্তিক শিপিং বিষয়ক সবচেয়ে পুরনো এবং জনপ্রিয় সংবাদমাধ্যম ‘লয়েডস লিস্ট’ অনুসারে চট্টগ্রাম বন্দরের অবস্থান ৬৪ নম্বরে। গত বছর চট্টগ্রামে অবস্থান ছিলো ৭০তম। অর্থাৎ একলাফে ৬ ধাপ এগিয়েছে দেশের সবচেয়ে বড় এ বন্দর।

লয়েডস লিস্টের ওয়েবসাইটে সম্প্রতি প্রকাশিত ২০১৯ সালের কন্টেইনার পরিবহনের জন্য শীর্ষ ১০০টি বন্দরের তালিকা থেকে এ তথ্য জানা গেছে। মেরিটাইম ওয়ার্ল্ডে অত্যন্ত জনপ্রিয় এই গণমাধ্যমটি প্রতিবছর তাদের ওয়েবসাইটে এ তালিকা প্রকাশ করে।

এবার ‘ওয়ান হানড্রেড পোর্টস ২০১৯’ শীর্ষক ওই তালিকায় শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে চীনের সাংহাই বন্দর। ২০১৮ সালেও বন্দরটি শীর্ষে ছিল। যথারীতি দ্বিতীয় অবস্থান ধরে রেখেছে সিঙ্গাপুর পোর্ট। তৃতীয়, চতুর্থ, পঞ্চম, সপ্তম, অষ্টম ও নবম অবস্থান চীনের বিভিন্ন বন্দরের দখলে রয়েছে এবার। ষষ্ঠ অবস্থানে এসেছে দক্ষিণ কোরিয়ার বুসান বন্দর। দশম অবস্থানে মধ্যপ্রাচ্যের দুবাই পোর্ট। নেদারল্যান্ডসের রটারডেম পোর্ট রয়েছে ১১তম অবস্থানে। মালয়েশিয়ার পোর্ট কেলাং ১২তম হয়েছে। প্রতিবেশী দেশ ভারতের জওহরলাল নেহেরু বন্দর ২৮তম ও মুন্দারা ৩৬তম অবস্থানে রয়েছে। শততম অবস্থানে রয়েছে তাইওয়ানের তাইপে বন্দর।

লয়েডস লিস্টের হিসাব অনুযায়ী, ২০১৮ সালে চট্টগ্রাম বন্দর ২৯ লাখ ৩ হাজার ৯৯৬ টিইইউ’স (২০ ফুট দীর্ঘ) কনটেইনার হ্যান্ডলিং করেছে। ২০১৭ সালে যা ছিল ২৬ লাখ ৬৭ হাজার ২২৩ টিইইউ’স। প্রবৃদ্ধি ৮ দশমিক ৯ শতাংশ।

অন্যদিকে বিশ্বসেরা চীনের সাংহাই ২০১৮ সালে হ্যান্ডলিং করেছিল ৪ কোটি ২০ লাখ ১০ হাজার ২০০ টিইইউ’স। ২০১৭ সালে যা ছিল ৪ কোটি ২ লাখ ৩৩ হাজার টিইইউ’স। প্রবৃদ্ধি ৪ দশমিক ৪ শতাংশ।

বন্দর কর্তৃপক্ষে ভাষ্য, সরকার ও নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সার্বিক সহযোগিতায় বন্দরের জন্য ‘কি গ্যান্ট্রি ক্রেন’ বা ‘কিউজিসি’সহ আধুনিক কনটেইনার হ্যান্ডলিং ইক্যুইপমেন্ট সংগ্রহ, ইয়ার্ড ও টার্মিনাল ফ্যাসিলিটি বাড়ানো, অটোমেশন, দক্ষ ব্যবস্থাপনা এবং বন্দর ব্যবহারকারীদের সমন্বিত প্রচেষ্টায় বন্দরের সক্ষমতা বৃদ্ধির কারণেই বন্দর এই স্থান অর্জন করে নিয়েছে।

বন্দর কর্তৃপক্ষ জানায়, নির্মাণাধীন পতেঙ্গা কনটেইনার টার্মিনাল (পিসিটি), বে-টার্মিনাল অপারেশনে গেলে চট্টগ্রাম বন্দরের কনটেইনার হ্যান্ডলিংয়ের পরিমাণ ক্রমে বাড়বে। তখন বিশ্বের সেরা ১০০ বন্দরের তালিকায় চট্টগ্রাম আরও অনেক এগিয়ে আসবে।

আনন্দের কথা এই, কনটেইনার পরিবহনের এই হার বৃদ্ধি দেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতি নির্দেশ করছে। কারণ, রফতানি পণ্যের প্রায় পুরোটাই পরিবহন হয় কনটেইনারে করে। আবার কনটেইনারে আমদানি পণ্যের সিংহভাগই শিল্পের কাঁচামাল। পোশাক রপ্তানির পরিমাণ বাড়ার কারণে বন্দরে কনটেইনার পরিবহনে অগ্রগতি হচ্ছে। কনটেইনার আমদানি-রপ্তানির বড় অংশই পোশাকশিল্পের কাঁচামাল এবং তৈরি পোশাক। এ ছাড়া ওষুধশিল্প, ইস্পাত কারখানাসহ অসংখ্য কারখানার কাঁচামাল আনা-নেওয়া হয় এই কনটেইনারে করেই।

 

Read previous post:
‘ডিসেম্বরের মধ্যে রাজাকার-যুদ্ধাপরাধীদের তালিকা প্রকাশ’

সংগৃহীত ছবি তৃতীয় মাত্রা ডেস্ক রিপোর্ট : মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেছেন, হাইকোর্টের একটি নিষেজ্ঞা থাকায় আমরা...

Close

উপরে