Logo
শুক্রবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০১৯ | ৫ই মাঘ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

নবজাতককে অন্যের হাতে তুলে দিলেন বাবা!

প্রকাশের সময়: ৪:৫৪ অপরাহ্ণ - বৃহস্পতিবার | জানুয়ারি ১০, ২০১৯

তৃতীয় মাত্রা

দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মোমেন মিয়া। সহায়-সম্বল বলতে আছে শুধু একটি টিনের ঘেরা ঘর। সমাজের বিভিন্ন সুবিধার বাহিরে থাকা মোমেন মিয়ার সংসারের সদস্য সংখ্যা পাঁচ ছাড়িয়ে গেছে গত বছরেই। বেসামাল সংসারের ভার নিতে ভিক্ষাবৃত্তিতে নামেন তিনি। তবে এ টাকায়ও সংসার চলছিল না। তাইতো এক প্রকার বাধ্য হয়েই নিজের নবজাতককে তুলে দিলেন অন্যের হাতে। বিনিময়ে পেলেন নগদ ৪ হাজার টাকা ও এক বস্তা চাল।

গত মঙ্গলবার এমন একটি ঘটনা ঘটেছে গাজীপুরে। এদিন সকালে মোমেন মিয়ার স্ত্রী ষষ্ঠবারের মতো একটি ছেলে সন্তান প্রসব করেন স্থানীয় একটি হাসপাতালে। কিন্তু এই সন্তানের ভরণপোষণের কোনো ব্যবস্থা তার হয়ে ওঠে না। তাই একদিন বয়সী ওই নবজাতককে তুলে দেন স্থানীয় এক নিঃসন্তান দম্পতির হাতে।

মোমেন মিয়া গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার মাওনা উত্তরপাড়া গ্রামের বাসিন্দা। আর নবজাতককে দত্তক নেওয়া আব্দুস সাত্তার একই উপজেলার আদম আলীর ছেলে।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে মোমেন মিয়ার সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ছোট খুপরি ঘরে সাতজনের বসবাস। তারা সমাজের খুবই অবহেলিত, একদিন ভিক্ষায় না গেলে চুলোয় আগুন জ্বলে না। আর বর্তমানে যে অবস্থা তাতে পাঁচ সন্তানদের মুখেই খাবার তুলে দিতে পারছেন না তিনি। আবার নবজাতককে কীভাবে লালন-পালন করবেন-এসব ভেবেই বুকে পাথর চাপা দিয়ে সন্তানকে অন্যের হাতে তুলে দিয়েছেন, যাতে সন্তানটা একটু ভালো থাকতে পারে।

কিন্তু নবজাতককে দেওয়ার পর থেকেই তার স্ত্রী শুধু কেঁদেই চলেছেন বলেও জানান মোমেন মিয়া।

এ বিষয়ে স্থানীয় সমাজকর্মী ফখরুল ইসলাম জানান, একটি পরিবারে বাবা ও মা তার সন্তানকে অভাবের কারণে যখন অন্যের হাতে তুলে দেন তখন তা সত্যিই আমাদের জন্য, দেশের জন্য লজ্জার। তাই মোমেন মিয়াদের পাশে সরকারের এগিয়ে আসা প্রয়োজন বলে মনে করেন তিনি।

Read previous post:
মন্ত্রিসভার সদস্যরা পছন্দের এপিএসই পাবেন

তৃতীয় মাত্রা : এবার নতুন মন্ত্রিসভার সদস্যরা পছন্দ অনুযায়ী একান্ত সচিব (পিএস) পাননি। তবে অন্যান্য সময়ের মতো পছন্দের সহকারী একান্ত...

Close

উপরে