Saturday, 26 November 2022
Logo

সমালোচনার মুখেই ইতালির নতুন অভিবাসন নীতি

সমালোচনার মুখেই ইতালির নতুন অভিবাসন নীতি

ইতালির প্রধানমন্ত্রী জর্জিয়া মেলোনির নেতৃত্বে গঠিত নতুন সরকার অবৈধ অভিবাসন দমনের প্রচারণার প্রতিশ্রুতি অনুসরণ করছে বলে জানা যায়। এরই প্রেক্ষিতে ইতালীয় বন্দরে প্রবেশকারী দাতব্য সংস্থার উদ্ধারকারী জাহাজ থেকে দু’শতাধিক শরণার্থীকে নামতে বাধা দেওয়া হয়েছে।

গত ১৪ দিন ধরে এসওএস মেডিটেরানি ও এসওএস হিউম্যানিটি এবং ডক্টরস উইদআউট বর্ডারসহ ইউরোপীয় বিভিন্ন দাতব্য সংস্থা পরিচালিত জাহাজগুলো ইতালির বন্দরে নোঙর করার চেষ্টা করছে। তারা ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে উত্তর আফ্রিকা থেকে ইউরোপ যাওয়ার চেষ্টা করা ও অতিরিক্ত বোঝাই নৌকা থেকে কয়েকশ’ অভিবাসীকে উদ্ধার করে ইতালিতে নামানোর চেষ্টা করছে।

গত রবিবার বার্লিন পরিচালিত হিউম্যানিটি-১ ও নরওয়ের পতাকাবাহী জিও ব্যারেন্টস জাহাজকে কিছু অভিবাসী নামাতে ইতালির কাতানিয়া বন্দরে নোঙর করার অনুমতি দেয় দেশটির কর্তৃপক্ষ। তবে, শুধুমাত্র কিছু নির্দিষ্ট গোষ্ঠী নামার অনুমতি পেয়েছিলো।

হিউম্যানিটি-১ জাহাজ ১৪৪ জন শিশু, গর্ভবতী নারী ও শিশুসহ মা এবং জরুরী চিকিৎসা সেবার প্রয়োজন এমন মানুষদের নামাতে পেরেছিল। ওই জাহাজে ৩৫ জন পুরুষ রয়ে যায়। অন্যদিকে, জিও ব্যারেন্টস জাহাজকে ৩৫৭ জন অভিবাসী নামানোর অনুমতি দেয়া হলেও ২১৫ জন পুরুষ এখনো জাহাজ ছাড়তে পারেননি।

ইতালীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মাত্তেও পিয়ান্তেডোসি বলেছেন, ‘যারা 'দুর্বল' হিসেবে বিবেচিত হবে না তাদের অবশ্যই ইতালীয় জলসীমা ছেড়ে যেতে হবে। তিনি জোর দিয়ে বলেছেন, এ কাজটি দাতব্য সংস্থাগুলোরই করা উচিত, যারা অভিবাসীদের প্রথম উদ্ধার করেছিল।’

'যতক্ষণ না সমুদ্রে দুর্দশা থেকে উদ্ধার করা সব জীবিতদের নামানো হচ্ছে' ততক্ষণ কাতানিয়া বন্দর ত্যাগ করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন দাতব্য সংস্থার ওইসব জাহাজগুলোর ক্যাপ্টেন। এছাড়া, এসওএস হিউম্যানিটি ইউরোপীয় আইন ও জেনেভা শরণার্থী কনভেনশন লঙ্ঘনের অভিযোগ এনে রোমের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।

এদিকে, অন্য দুটি দাতব্য সংস্থার জাহাজ সমুদ্রে আটকা পড়েছে। কারণ, কোনো ইতালীয় বন্দর তাদের গ্রহণ করতে রাজি নয়। জার্মান পরিচালিত রাইজ এবং জাহাজে বর্তমানে ৯৩ জন যাত্রী রয়েছে। এছাড়া, এসওএস মেডিটারানীর ওশান ভাইকিং জাহাজে প্রায় ২৩৪ জন যাত্রী রয়েছে।

ইতালির নতুন প্রধানমন্ত্রী জর্জিয়া মেলোনি ইতালির সংসদ সদস্যদের উদ্দেশে তার উদ্বোধনী বক্তব্য সময় তার সরকারের শীর্ষ অগ্রাধিকারগুলোর মধ্যে অবৈধ অভিবাসনকে গুরুত্ব দিয়েছেন বলে এমন পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। -সূত্র : আরটি।

comment / reply_from

related_post