• Saturday, 10 December 2022

মস্কোকে ড্রোন সরবরাহের কথা স্বীকার করলো তেহরান

মস্কোকে ড্রোন সরবরাহের কথা স্বীকার করলো তেহরান

ইরান আজ শনিবার (৫ নভেম্বর) মস্কোকে ড্রোন সরবরাহের কথা প্রথমবারের মতো স্বীকার করেছে। তবে দেশটির দাবি, ‘রাশিয়া ইউক্রেনের বিদ্যুৎকেন্দ্র ও বেসামরিক অবকাঠামো লক্ষ্য করে ড্রোন ব্যবহার করলেও সেগুলো যুদ্ধের আগে মস্কোতে পাঠানো হয়েছিল।’

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির আবদুল্লাহিয়ান বলেছেন, ‘২৪ ফেব্রুয়ারি মস্কোর বাহিনী ইউক্রেন আক্রমণ করার কয়েক মাস আগেই রাশিয়াকে 'অল্পসংখ্যক' ড্রোন সরবরাহ করা হয়েছিল। তবে এ পর্যন্ত ড্রোন সম্পর্কে ইরানের সবচেয়ে বিশদ প্রতিক্রিয়ায় তিনি অস্বীকার করেছেন যে তেহরান মস্কোকে ড্রোন সরবরাহ অব্যাহত রেখেছে।’

সরকারি বার্তা সংস্থা আইআরএনএ আমির আবদুল্লাহিয়ানকে উদ্ধৃত করে বলেছে, 'কয়েকটি পশ্চিমা দেশ হট্টগোল তৈরি করেছে যে ইউক্রেনের যুদ্ধে সহায়তা করার জন্য ইরান রাশিয়াকে ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোন সরবরাহ করেছে। ক্ষেপণাস্ত্রের ব্যাপারটি সম্পূর্ণ ভুল। ড্রোনের ব্যাপারটি সত্য এবং আমরা ইউক্রেন যুদ্ধের কয়েক মাস আগে রাশিয়াকে অল্পসংখ্যক ড্রোন সরবরাহ করেছি।’

সম্প্রতি, সপ্তাহগুলোতে ইউক্রেনের বেসামরিক অবকাঠামোতে ড্রোন হামলা বৃদ্ধির খবর পাওয়া গেছে। বিশেষ করে, ইরানের তৈরি শাহেদ-১৩৬ ড্রোন ব্যবহার করে বিদ্যুৎকেন্দ্র ও বাঁধগুলোকে লক্ষ্য করে হামলা চালানো হয়েছে। তবে, ইউক্রেনে হামলায় ইরানের ড্রোন ব্যবহার করার কথা রাশিয়া অস্বীকার করেছে।

এদিকে, গত মাসে দুই জ্যেষ্ঠ ইরানি কর্মকর্তা ও দুই ইরানি কূটনীতিক রয়টার্সকে বলেছিলেন, ‘ইরান রাশিয়াকে আরো ড্রোন ও 'সারফেস টু সারফেস ক্ষেপণাস্ত্র' দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।’

আইআরএনএ আমির আবদুল্লাহিয়ানকে উদ্ধৃত করে বলেছে, ‘ইউক্রেনে ইরানি ড্রোন ব্যবহারের অভিযোগ নিয়ে দুই সপ্তাহ আগে তেহরান এবং কিয়েভ আলোচনা করতে সম্মত হয়েছিল, কিন্তু ইউক্রেনীয়রা সে বৈঠকে উপস্থিত হয়নি। আমির আবদুল্লাহিয়ান বলেছেন, 'রাশিয়া ইউক্রেনে ইরানের ড্রোন ব্যবহার করেছে-এমন নথিগুলো আমাদের সরবরাহ করার জন্য ইউক্রেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমাদের সঙ্গে সম্মত হয়েছেন। কিন্তু ইউক্রেনের প্রতিনিধি দল শেষ মুহূর্তে পরিকল্পিত বৈঠক থেকে সরে আসে।'

এ ব্যাপারে ইউক্রেনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় তাৎক্ষণিকভাবে মন্তব্যের জন্য লিখিত অনুরোধের কোনো জবাব দেয়নি।

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী পুনরাবৃত্তি করেছেন, ‘রাশিয়া ইউক্রেনের বিরুদ্ধে যুদ্ধে ইরানের ড্রোন ব্যবহার করেছে তা প্রমাণিত হলে তেহরান 'উদাসীন থাকবে না।’

উল্লেখ্য, গতমাসে ইউরোপীয় ইউনিয়ন রাশিয়াকে ড্রোন সরবরাহের জন্য ইরানের ওপর নতুন নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। এছাড়া, ইউক্রেনের বেসামরিক অবকাঠামোতে হামলার জন্য রাশিয়াকে ড্রোন সরবরাহ করায় তিন ইরানি সামরিক ব্যক্তিত্ব ও একজন প্রতিরক্ষা প্রস্তুতকারকের ওপর ব্রিটেন নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। -সূত্র: রয়টার্স।

comment / reply_from

related_post