• Tuesday, 06 December 2022
প্রশংসায় ভাসছেন এসিল্যান্ড গোলাম রব্বানী

প্রশংসায় ভাসছেন এসিল্যান্ড গোলাম রব্বানী

মুহম্মদ তরিকুল ইসলাম, পঞ্চগড় প্রতিনিধিঃ

পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জে শৃঙ্খলা ফিরছে ভূমি ব্যবস্থাপনায়, জনগণের প্রশংসায় ভাসছেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) গোলাম রব্বানী
সরদার।


অবৈধ দখলদারিত্ব, অবৈধভাবে বালু উত্তোলন, অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ, রিজার্ভ ল্যান্ডের
তসদিক বাতিল, দালাল মুক্ত ভূমি অফিসসহ বেশ কিছু জনবান্ধব পদক্ষেপ নিয়ে সাধারণ
মানুষের প্রশংসায় ভাসছেন দিনাজপুর জেলার হাকিমপুর উপজেলার বোয়ালদাড় গ্রামের
কৃতি সন্তান ও দেবীগঞ্জের সহকারী কমিশনার গোলাম রব্বানী।

তিনি দেবীগঞ্জে উপজেলায় যোগদানের পর থেকে ইউনিয়ন ভূমি অফিস করেছেন
দালালমুক্ত এবং অনিয়মের বিরুদ্ধে বিশেষ দায়িত্বশীল ও সাহসী ভূমিকায় স্বস্তি
এসেছে এলাকার সাধারণ মানুষের মাঝে।

তিনি উপজেলার বিভিন্ন অনিয়মের বিরুদ্ধে নিয়মিত অভিযান পরিচালনার মাধ্যমে
দখলমুক্ত করেছেন বেশ কিছু সরকারি সম্পত্তি, আইনের আওতায় এনেছেন অপরাধীদের।
এছাড়া অবৈধ বালু উত্তোলন বন্ধেও নিয়মিত অভিযান অব্যাহত রেখেছেন। এরই মধ্যে
অবৈধ ড্রেজার ও বালু উত্তোলনের অভিযোগে ১১টি অভিযান পরিচালনা করে ৪ লাখ ৬০
হাজার টাকা অর্থদন্ড আদায় করে রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা করেছেন।

গোলাম রব্বানী সরদার দিনাজপুরের হাকিমপুর উপজেলার বোয়ালদাড় গ্রামে
জন্ম গ্রহণ করেন। পিতা মোসলেম উদ্দিন সরদার এবং মাতা আকতারা বিবির তিন
সন্তানের মধ্যে প্রথম গোলাম রব্বানী। শৈশব ও কৈশোর কেটেছে গ্রামের ধুলাবালি
গায়ে মেখে।

তিনি শিক্ষা জীবনে বোয়ালদাড় উচ্চ বিদ্যালয় থেকে বিজ্ঞান বিভাগে এসএসসি এবং
বিরামপুর সরকারি কলেজ থেকে বিজ্ঞান বিভাগে এইচএসসি পাস করে জগন্নাথ
বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্যে ২০১৩ সালে স্নাতক (সম্মান) এবং
২০১৪ সালে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন।

স্নাতকোত্তর অধ্যায়নকালে কর্মজীবনে প্রবেশ করেন। শুরুতে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী
পরিচালিত আদমজী ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ, ঢাকা সেনানিবাস এবং
সিলেট ক্যাডেট কলেজ, সিলেট এ কিছুদিন শিক্ষকতা করেন। পরবর্তীতে সরকারী কর্ম
কমিশন (পিএসসি) থেকে সুপারিশ প্রাপ্ত হয়ে সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার
হিসেবে মাঠ পর্যায়ে প্রাথমিক শিক্ষার মান উন্নয়নে প্রায় দুই বছর কাজ করেন।
পরবর্তীতে প্রতিযোগিতামূলক বিসিএস পরীক্ষার মাধ্যমে বিসিএস (প্রশাসন)
ক্যাডারে ৩৭তম ব্যাচে যোগদান করেন। প্রথমে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, নেত্রকোণা
এবং পরবর্তীতে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, ঠাকুরগাঁও এ জুডিসিয়াল মুন্সিখানা,
জেনারেল সার্টিফিকেট, আরএম, এসএ, ভূমি অধিগ্রহণ, রেকর্ডরুম,
আইসিটি, শিক্ষা ও কল্যাণ, সাধারণ, নেজারত, ট্রেজারি এবং জেলা ত্রাণ ও পূর্ণবাসন
শাখায় কাজ করেন। ঠাকুরগাঁও জেলা কারাগারে জেল সুপার হিসেবেও দীর্ঘদিন দক্ষতার
সহিত দায়িত্ব পালন করেন।

 

comment / reply_from