• Saturday, 10 December 2022
পাটগ্রামে পাঁচ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ

পাটগ্রামে পাঁচ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ

এবি সিদ্দিক, পাটগ্রাম (লালমনিরহাট) প্রতিনিধিঃ
 
লালমনিরহাট পাটগ্রাম উপজেলাধীন শ্রীরামপুর ইউনিয়নের একাধিক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বিরুদ্ধে অনিয়ম ও দুর্ণীতির তথ্য পাওয়া যায়। 
 
বৃহস্পতিবার (০৩ নভেম্বর) সকালে ইউনিয়নের পাঁচটি বিদ্যালয় যথাক্রমে ছাট শ্রীরামপুর, ঝালাংগী, ছাট ঝালাংগী, বেলের বাড়ী ও আউলিয়ারহাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও সহকারি শিক্ষকের বিরুদ্ধে নির্ধারিত সময়ে বিদ্যালয়ে উপস্থিত না হওয়া, ক্ষুদ্র মেরামতের অর্থ ও স্লিপ বরাদ্দে অনিয়মের সত্যতা সরেজমিনে গিয়ে পাওয়া যায়।
 
এইদিন নির্ধারিত সময় সকাল ০৯ টার মধ্যে উল্লেখিত প্রথম চার প্রতিষ্ঠানের কোনো শিক্ষককে উপস্থিত থাকতে দেখা যায়নি। নয়টার অনেক পরে এসব বিদ্যালয়ের দপ্তরিদের পতাকা টাঙ্গানো ও রুম খুলতে দেখা যায়। এদের মধ্যে কোনোটিতে এক ঘন্টা পার হলেও একজন শিক্ষকেরও উপস্থিতি চোখে পড়েনি। এসময় অধিকাংশ বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদেরকে শিক্ষকদের জন্য অপেক্ষায় থাকতে দেখা যায়। তারাও শিক্ষকদের বিদ্যালয়ে প্রায়ই দেরিতে আসার কথা জানান। উল্লেখ্য, ঝালাংগী স.প্রা. বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের দেরিতে উপস্থিতির পাশাপাশি নির্দিষ্ট সময়ের অনেক আগেই প্রতিষ্ঠানটি বন্ধের চিত্র দেখা যায়। আশপাশের অভিভাবকেরাও এসব বিষয়ের সত্যতা নিশ্চিত করেন। এর মধ্যে বেলের বাড়ী স.প্রা. বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক প্রশিক্ষণে ছিলেন বলে জানা যায়। তবে আউলিয়ারহাট স.প্রা. বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের নির্ধারিত সময়ের মধ্যে উপস্থিত থাকতে দেখা গেলেও পাওয়া যায় বিভিন্ন বরাদ্দকৃত অর্থে নানা অনিয়ম। 
 
ছাট শ্রীরামপুর স.প্রা. বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মনোয়ারা খাতুন দেরিতে উপস্থিত হওয়ার কারণ হিসেবে এমনটা প্রথম হলো আগে কখনো হয়নি বলে জানান। সহকারি শিক্ষক ও দপ্তরিও একই কথা বলেন। একই বিষয়ে অনুপস্থিত ঝালাংগী স.প্রা. বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জাকির হোসেন ফোনালাপে জানান, আমার ও সহকারিদের বাড়ি দুরে তাই আসতে দেরি হয়। ছাট ঝালাংগী স.প্রা. বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আনছার উদ্দিনের সঙ্গে কথা হলে তিনি জানান, ঠিক সময় আসার চেষ্টা করি কিন্তু বাড়ী দুরে হওয়ায় আসতে দেরি হয়ে যায়। সহকারি শিক্ষকদের দেরিতে উপস্থিতির কারণ হিসেবেও একই কথা জানান আনছার উদ্দিন। একইভাবে বেলের বাড়ী স.প্রা. বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সহকারি শিক্ষকের দেরিতে উপস্থিতির বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, তাঁর বাড়ি অনেক দুরে তাই দেরি হয়। আর আমি প্রশিক্ষণে আছি।
 
এদিকে আউলিয়ারহাট স.প্রা. বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের যথাসময়ে দেখা গেলেও বিভিন্ন সময়ে প্রতিষ্ঠানে বরাদ্দকৃত অর্থে অনিয়মের তথ্য মেলে প্রধান শিক্ষক আমির হোসেনের বিরুদ্ধে। ফ্যান ক্রয়, বাঁশ, ইট, বালু ইত্যাদির হিসাবে গড়মিল ও প্রকৃত মুল্যের দ্বিগুণ মুল্য ভ্যাটসহ রেজুলেশন বহিতে উল্লেখের কারণ জানতে চাইলে শিক্ষা অফিস থেকে বরাদ্দের আগেই বিলের ভাউচারে বেশি টাকা উল্লেখ করে উপজেলা শিক্ষা অফিস কর্তৃক জমা দেওয়ার নির্দেশনা রয়েছে বলে তিনি জানান। একইভাবে ছাট শ্রীরামপুর স.প্রা. বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মনোয়ারা খাতুনের কাছে ক্ষুদ্র মেরামত ও স্লিপ বরাদ্দের হিসাবে গড়মিলের কারণ জানতে চাইলে শিক্ষা অফিস থেকে অগ্রিম বিলের ভাউচার প্রস্তুত রাখার নির্দেশনা আছে বলে জানান। তবে এর কারণ জানতে চাইলে এবিষয়ে কিছু বলতে চাইনা বলে চুপ যান।
 
উল্লেখিত প্রতিষ্ঠানগুলোতে ঠিক সময়ে শিক্ষকদের অনুপস্থিতি এবং বিভিন্ন বরাদ্দকৃত অর্থে অনিয়মের বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণের কথা জানান পাটগ্রাম উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আবুল হোসেন। তবে শিক্ষা অফিস কর্তৃক ভাউচার সম্পর্কিত নির্দেশনার বিষয়ে  দুই প্রতিষ্ঠান প্রধানের বক্তব্যকে অস্বীকার করেন তিনি।

comment / reply_from