Saturday, 26 November 2022
Logo

দূষণ থামাও নয়তো গায়ের ওপর বিমান ওঠাও: পরিবেশকর্মী

দূষণ থামাও নয়তো গায়ের ওপর বিমান ওঠাও: পরিবেশকর্মী

সাদা পোশাক পরা শতাধিক পরিবেশকর্মী বিমানবন্দরে ব্যক্তিগত বিমান রাখার জায়গায় ঝাপিয়ে পড়ে ও চাকার সামনে বসে বেশ কয়েকটি উড়োজাহাজের উড্ডয়ন বন্ধ করে দিয়েছে। আজ শনিবার (৫ নভেম্বর) ঘটনাটি ঘটেছে নেদারল্যান্ডের আমস্টারডামের শিফোল বিমানবন্দরে।

বিমানবন্দরের চারপাশে পরিবেশবাদী গোষ্ঠী 'গ্রিনপিস' ও 'বিলুপ্তি বিদ্রোহ' আয়োজিত বিক্ষোভের অংশ হিসেবে তারা এভাবে আন্দোলন করেছেন। তারা বিমানবন্দর ও বিমান শিল্পের কারণে গ্রিনহাউস গ্যাস নির্গমন ও অন্যান্য দূষণের প্রতিবাদ করছেন।

তবে, বাণিজ্যিক ফ্লাইটে ভোর বেলা পর্যন্ত কোনো বিলম্বের খবর পাওয়া যায়নি। গ্রিনপিস নেদারল্যান্ডের প্রচারাভিযান নেতা দেউই জলোচ বলেছেন, 'আমরা কম ফ্লাইট চাই, আরো ট্রেন চাই এবং অপ্রয়োজনীয় স্বল্প দূরত্বের ফ্লাইট ও ব্যক্তিগত জেটের ওপর নিষেধাজ্ঞা চাই। '

পরিবেশবাদী গোষ্ঠীটির দাবি, নেদারল্যান্ডে কার্বন ডাই অক্সাইড নির্গমনের সবচেয়ে বড় উৎস শিফোল বিমানবন্দর। এখান থেকে বছরে ১ হাজার ২০০ কোটি কেজি কার্বন-ডাই-অক্সাইড নির্গত হয়।

বিক্ষোভের অংশ হিসেবে বিমানবন্দরের প্রধান হলের ভেতর ও আশেপাশে আরো কয়েকশ বিক্ষোভকারী 'বিমান চলাচল সীমিত করুন' ও 'আরো ট্রেন' লেখা ব্যানার প্রদর্শন করেছেন।

বিমানবন্দরের নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত সামরিক পুলিশ এক বিবৃতিতে বলেছে, 'অনুমতি ছাড়া বিমানবন্দর এলাকায় থাকা অনেক ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে।'

প্রতিবাদের প্রতিক্রিয়ায় শিফোলের কর্তৃপক্ষ বলেছে, ‘২০৩০ সালের মধ্যে বিমানবন্দরটি কার্বন নির্গমন মুক্ত করার লক্ষ্য নেওয়া হয়েছে। এটি ২০৫০ সালের মধ্যে বিমান শিল্পের মোট নির্গমন শূন্যে পৌঁছানোর লক্ষ্যগুলোকে সমর্থন করে।’

ডাচ সরকার জুন মাসে বায়ু দূষণ ও জলবায়ু নিয়ে উদ্বেগের কথা উল্লেখ করে বিমানবন্দরে বার্ষিক যাত্রীর সীমা চার লাখ ৪০ হাজারে নির্ধারণের পরিকল্পনা ঘোষণা করেছিল। এ সীমা ২০১৯ সালের যাত্রী সংখ্যা থেকে ১১ শতাংশ কম।

এদিকে, পরিবহন মন্ত্রী মার্ক হারবার্স গত মাসে সংসদে বলেছিলেন, ‘তার মন্ত্রণালয় ক্রমবর্ধমান ব্যক্তিগত জেট ট্র্যাফিক নিয়ন্ত্রণ করতে পারে না। বিষয়টি জলবায়ু নীতিতে অন্তর্ভুক্ত করা হবে কিনা তা সরকার বিবেচনা করছে।’ -সূত্র : রয়টার্স।

comment / reply_from

related_post