• Tuesday, 07 February 2023
কেন্দুয়ায় বিএনপির নেতা কর্মীদের নামে বিস্ফোরক আইনে মামলা- আটক ৯

কেন্দুয়ায় বিএনপির নেতা কর্মীদের নামে বিস্ফোরক আইনে মামলা- আটক ৯

আশরাফ গোলাপ কেন্দুয়া (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি: 
 
সরকার পতনের লক্ষে বিস্ফোরক দ্রব্য বিস্ফোরণের অভিযোগে নেত্রকোনার কেন্দুয়া পৌর বিএনপির সভাপতি খোকন আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক মোয়াজ্জেম হোসেন খানসহ বিএনপির ৯ জন নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।  
 
শুক্রবার (২৫ নভেম্বর) সন্ধ্যায় কেন্দুয়া থানা পুলিশ উপজেলার আশুজিয়া ইউনিয়নের বীরগঞ্জ বাজার থেকে তাদের আটক করে। 
এদিকে শনিবার (২৬ নভেম্বর) কেন্দুয়া থানা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) তানভীর মেহেদী বাদী হয়ে আটক ৯ জনসহ ৫২ জনের নামোল্লেখ করে বিশেষ ক্ষমতা আইন তথসহ বিস্ফোরক আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় অজ্ঞাত আরও ১২০ থেকে ১৩০ জনকে আসামী করা হয়েছে।
 
দুপুরে কেন্দুয়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আলী হোসেন মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
ওসি জানান, আটক ৯ জনকে মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে নেত্রকোনা আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।
 
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, গ্রেপ্তারকৃত বিএনপির অন্য ৭ জন নেতাকর্মী হলেন- উপজেলার আশুজিয়া ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি সোহেল আহম্মেদ, একই ইউনিয়ন বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি আব্দুল হেলিম ভূইয়া, উপজেলা যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক নূরুল ইসলাম, জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম সম্পাদক রফিকুল ইসলাম সাদেক, যুবদল নেতা সাদ্দাম হোসেন, আঞ্জু মেম্বার ও মাসুদ আলম।
 
মামলার বরাত দিয়ে ওসি মো. আলী হোসেন জানান, সরকার পতনের লক্ষে শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৫টার দিকে উপজেলার আশুজিয়া ইউনিয়নের বীরগঞ্জ বাজারে বিএনপির দলীয় কার্যালয়ের সামনে দলটির নেতাকর্মীরা জড়ো হন। খবর পেয়ে কেন্দুয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে ছুটে গেলে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ৩-৪ টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে বিএনপি নেতাকর্মীরা পালিয়ে যান। এ সময় পুলিশ বিএনপির ৯ নেতাকর্মীকে আটক করে এবং অবিস্ফোরিত ৪টি ককটেল উদ্ধার করে।
 
এ বিষয়ে কথা হলে কেন্দুয়া উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মজিবুর রহমান ভূইয়া মজনু বলেন, বিএনপির চলমান আন্দোলনকে প্রতিহত করার জন্যই সরকারের আজ্ঞাবাহী পুলিশ বাহিনী অহেতুক আমাদের দলের ৯ জন নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করেছে এবং সম্পূর্ণ মিথ্যা ও গায়েবী মামলা দায়ের করেছে। এভাবে হয়রানি-নিপীড়ন করে আমাদের আন্দোলনকে থামানো যাবে না। আমরা এ গ্রেপ্তার ও মামলার তীব্র নিন্দা জানাই।
আশরাফ গোলাপ  

comment / reply_from